সম্পদ কেন্দ্রীকরণ একটি বিস্ফোরন্মুখ টাইম বোমা : ইউরোপীয় পার্লামেন্ট সদস্যদের সতর্ক করলেন প্রফেসর ইউনূস

10th June, 2017

সম্পদ কেন্দ্রীকরণ একটি বিস্ফোরন্মুখ টাইম বোমা : ইউরোপীয় পার্লামেন্ট সদস্যদের সতর্ক করলেন প্রফেসর ইউনূস

প্রফেসর ইউনূস ও এসডিজি সমর্থকদের সম্মানে রয়্যাল প্যালেসে বেলজিয়ামের রানী মাটিলডের মধ্যাহ্নভোজ

ব্রাসেল্সে ইউরোপীয় পার্লমেন্টের শতাধিক সদস্যর উদ্দেশ্যে ভাষণ দিয়েছেন নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস। তাঁর এই ভাষণ শুনতে আসা পার্লামেন্ট সদস্যদের সাথে আরো ছিলেন নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী এরনা সোলবার্গ এবং ইউরোপীয় পার্লামেন্টের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন বিষয়ক পার্লামেন্টারী কমিটির আমন্ত্রণে আসা আরো দু’জন বক্তা। পার্লামেন্ট সদস্যদের উদ্দেশ্যে তাঁর বক্তৃতায় প্রফেসর ইউনূস বলেন যে, সম্পদ কেন্দ্রীকরণ পরিস্থিতি দিন দিন আরো ভয়াবহ হচ্ছে যা এখন শুধু সম্পদ বৈষম্যে সীমাবদ্ধ নেই Ñ এটা এখন সম্পদ একচেটিয়ায় পরিণত হয়েছে। বর্তমান পুঁজিবাদী ব্যবস্থাকে ঢেলে সাজানো না গেলে এই পরিস্থিতি বিস্ফোরিত হতে বাধ্য। এটা এখন এটা বিস্ফোরন্মুখ টাইম বোমায় পরিণত হয়েছে।

ইউরোপীয় উন্নয়ন দিবসে অংশগ্রহণকালে প্রফেসর ইউনূস একটি বৈশ্বিক বিতর্কে যোগ দেন যেখানে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে ১২০টিরও বেশী সেশনে প্রায় ৭,০০০ জন অংশ নেন। তিনি ৫টি ভিন্ন ভিন্ন অফিসিয়াল সেশনে বক্তব্য রাখেন এবং তাঁর সামাজিক ব্যবসা ও ‘তিন শূন্য’র ধারণা সকলের সামনে তুলে ধরেন। “কেউ পেছনে পড়ে থাকবে না” শীর্ষক সেশনে তিনি বলেন যে, বর্তমান ব্যবস্থা যা কি-না ৯৯ শতাংশ মানুষকে পেছনে ফেলে রাখে এবং সামনে এগোতে দেয় না তার মাধ্যমে এই পরিস্থিতির উন্নতির কোনো সুযোগ নেই। বর্তমান ব্যবস্থাটিকে কীভাবে পরিবর্তিত করা যায় সে বিষয়ে তিনি তাঁর প্রস্তাব উপস্থাপন করেন।

৭-৮ জুন ২০১৭ বেলজিয়ামের ব্রাসেল্সে অনুষ্ঠিত ইউরোপীয় উন্নয়ন দিবসে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যের উচ্চ পর্যায়ের সমর্থকগণ এই লক্ষ্যগুলোর বাস্তবায়ন বিষয়ে তাঁদের মতামত বিনিময় করেন ও তাঁদের স্ব-স্ব প্রস্তাব উপস্থাপন করেন।

টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যের (এসডিজি) সমর্থকদের সম্মানে রয়্যাল প্যালেসে বেলজিয়ামের মহামান্য রানী মাটিলডে আয়োজিত মধ্যাহ্নভোজ সভায় টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহ বাস্তবায়ন নিয়ে এবং এর সমর্থকরা কী ভূমিকা পালন করতে পারেন তা নিয়ে আলোচনা হয়। উল্লেখ্য যে, জাতি সংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহের সমর্থক গ্রুপে প্রফেসর ইউনূস ও অন্যদের সাথে মহামান্য রানীও এর অন্যতম সদস্য

এ বছরের ইউরোপীয় উন্নয়ন দিবসের শ্লোগান ছিল “উন্নয়নে বিনিয়োগ।” প্রফেসর ইউনূস নতুন ইউরোপীয় উন্নয়ন সম্মতিপত্রের স্বাক্ষরদান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে যোগ দেন। সম্মতিপত্রে স্বাক্ষর করেন কাউন্সিল ও সদস্য রাষ্ট্রগুলোর পক্ষে ইউরোপীয় পার্লমেন্টের প্রেসিডেন্ট মাল্টার প্রধানমন্ত্রী জোসেফ মাসকাট, ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জাঁ-ক্লদ জাংকার, ইউরোপীয় কমিশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং  ইউনিয়ন ফর ফরেন অ্যাফয়ার্স এন্ড সিকিউরিটি পলিসির হাই রিপ্রেজেন্টেটিভ ফেডেরিকা মোগেরিনি, এবং ইউরোপীয়  পার্লামেন্টের প্রেসিডেন্ট অ্যান্টোনিও তাজানি।

ইউরোপীয় উন্নয়ন দিবস উদ্বোধন করেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রেসিডেন্ট জাঁ-ক্লদ জাংকার। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টিন লাগার্দ, ইউরোপীয় কমিশনের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং  ইউনিয়ন ফর ফরেন অ্যাফয়ার্স এন্ড সিকিউরিটি পলিসির হাই রিপ্রেজেন্টেটিভ ফেডেরিকা মোগেরিনি, মাল্টার প্রধানমন্ত্রী জোসেফ মাসকাট, ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট জাঁ-ক্লদ জাংকার ও ইউরোপীয়  পার্লামেন্টের প্রেসিডেন্ট অ্যান্টোনিও তাজানি, গিনির প্রেসিডেন্ট ও আফ্রিকান ইউনিয়নের সভাপতি আলফা কন্দ, মালাউয়ির প্রেসিডেন্ট আর্থার পিটার মুথারিকা, ঘানার প্রেসিডেন্ট নানা আকুফো-আদ্দো, বলিভিয়ার প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেস, সেনেগালের প্রেসিডেন্ট ম্যাকি সল, গায়ানার প্রেসিডেন্ট ডেভিড এ. গ্রানজের, রুয়ান্ডার প্রেসিডেন্ট পল কাগামে প্রমূখ।

ছবির ক্যাপশন-১: ব্রাসেল্সে ইউরোপীয় উন্নয়ন দিবসে জাতি সংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহের সমর্থক গ্রুপের (এসডিজি এডভোকেসী গ্রুপ) সদস্যদের সাথে নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস। ছবিতে তাঁর সঙ্গে রয়েছেন নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী এরনা সোলবার্গ, বেলজিয়ামের মহামান্য রানী মাটিলডে, আ-লা মারুবিত, প্রফেসর জেফরে সাক্স ও অন্যান্যগণ।

ছবির ক্যাপশন-২: ইউরোপীয় পার্লমেন্টে বক্তব্য রাখছেন নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস। ছবিতে তাঁর সঙ্গে রয়েছেন নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী এরনা সোলবার্গ ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

Related Contents